নিহত রিংকু ঝিনাইদহ সদর উপজেলার শৈলকুপা এলাকার হাশেম মিয়ার ছেলে। স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে তিনি ঢাকার উত্তরায় থাকতেন। পুলিশ জানিয়েছে, ব্যবসার কাজ শেষে তিনি মোটরসাইকেলে তারাব থেকে গাউছিয়া হয়ে উত্তরায় ফিরছিলেন।

ভুলতা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (পরিদর্শক) ওমর ফারুক প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ওই ব্যবসায়ী মোটরসাইকেলে বাড়ি ফিরছিলেন। কোনো যানবাহনের ধাক্কায় তাঁর মৃত্যু হয়নি। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে সড়কজুড়ে কিছু গর্ত ও সড়কের ওপর বালু ছিল। পথে গর্ত দেখে মোটরসাইকেলের গতি কমাতে গিয়ে বালুর কারণে পিছলে তিনি সড়কে ছিটকে পড়েন। এতে তিনি মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর আঘাত পান। স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে পাশের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে তাঁর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।