নাদিম মোস্তফার ব্যক্তিগত সহকারী মোস্তাফিজুর রহমান সুমন বলেন, জেলা ডিবি পুলিশ পরিচয়ে আজ বেলা ১১টার দিকে নাদিম মোস্তফাকে তুলে নেওয়া হয়। তাঁরা সাদাপোশাকে ছিলেন। তাঁকে তুলে নেওয়ার সময় বলা হয়, তাঁর বিরুদ্ধে তিনটি মামলা রয়েছে। তাঁকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে নেওয়া হচ্ছে।

আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ। এ উপলক্ষে বিএনপির প্রস্তুতি চলছে। তবে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে রাজশাহীর রাজনীতিতে উত্তেজনা বিরাজ করছে। থানায় থানায় ককটেল বিস্ফোরণ ও উদ্ধারের ঘটনায় বিএনপির কয়েক শ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

নাদিম মোস্তফার মামলার বিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২০১৫ সালের ৫ জানুয়ারি পুঠিয়ার বানেশ্বরের মজির উদ্দীন হত্যা মামলায় গত ১১ জানুয়ারি নাদিম মোস্তফার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। পরে তিনি গত মার্চে উচ্চ আদালত থেকে ছয় সপ্তাহের আগাম জামিন পান। উচ্চ আদালত নাদিম মোস্তফাকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিলেও তিনি নিম্ন আদালতে হাজির হননি। দীর্ঘদিন নির্বাচনী এলাকায় না থাকলেও আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ সফল করতে এক সপ্তাহ ধরে তিনি তাঁর নির্বাচনী এলাকা দুর্গাপুরের বিভিন্ন কর্মিসভায় যোগ দেন।