জারি করা গণবিজ্ঞপ্তিতে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি বলেছেন, বান্দরবান সেনা রিজিয়ন সদরদপ্তরের ৩ নভেম্বর চিঠির আলোকে গত ৩০ অক্টোবর জারি করা চারটি উপজেলায় ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা ৮ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হলো। জনস্বার্থে ও নিরপত্তার বিষয় বিবেচনা করে রুমা, থানচি, রোয়াংছড়ি ও আলীকদম উপজেলায় দেশি-বিদেশি পর্যটকদের ভ্রমণে এই নিষেধাজ্ঞা প্রয়োজ্য হবে।

এর আগে প্রথমে গত ১৭ অক্টোবর রোয়াংছড়ি ও রুমা উপজেলায় পর্যটকদের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল। দ্বিতীয় দফায় ২৩ অক্টোবর ও তৃতীয়বারে ৩০ অক্টোবর ওই দুই উপজেলাসহ থানচি ও আলীকদম উপজেলায় ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়ে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।

মিয়ানমারের সীমান্তবর্তী রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার দুর্গম বড়থলি ইউনিয়ন ও ওই ইউনিয়ন–সংলগ্ন বান্দরবানের রুমা ও রোয়াংছড়ি উপজেলায় গত ৯ অক্টোবর থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সমন্বিত জঙ্গিবিরোধী অভিযান পরিচালনা করছে। ১৮ অক্টোবর থেকে থানচি ও আলীকদম উপজেলাও অভিযানের আওতায় নেওয়া হয়।

প্রশাসন ও পুলিশের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গোয়েন্দা তথ্য অনুযায়ী দুর্গম পাহাড়ে কুকিচীন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএনএফ) নামে একটি সন্ত্রাসী সংগঠন থেকে সমতল থেকে আসা জঙ্গিরা প্রশিক্ষণ নিচ্ছে ও সেখানে অবস্থান করছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সমন্বিত অভিযান পরিচালনা করছে। অভিযান চলাকালে পর্যটকদের নিরাপত্তার বিষয় বিবেচনা করে ভ্রমণের ওপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।