শিশুটির মামা একরামুল হক বলেন, মামার বিয়ে উপলক্ষে গত বৃহস্পতিবার মায়ের সঙ্গে নানার বাড়িতে বেড়াতে যায় মিমি। গতকাল বিকেলে উপজেলার আহাম্মদপুর এলাকায় মিমির মামা ইলিয়াছ হোসেনের বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল। বিকেলে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষে বাড়ির সবাই নতুন বউকে নিয়ে আনন্দ করছিলেন। শিশুটির মা অতিথিদের আপ্যায়ন নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। তখন শিশুটি বাড়ির উঠানে অন্য ছেলেমেয়েদের সঙ্গে খেলা করছিল। এ সময় মায়ের অজান্তে শিশুটি ঘরের পাশে পুকুরে চলে যায়। কাজ শেষে মিমিকে বাড়িতে না পেয়ে আশপাশে খুঁজতে থাকেন তাঁরা। কোথাও খুঁজে না পেয়ে স্বজনেরা বাড়ির পাশে পুকুরে যান। এ সময় পুকুরের পানিতে মিমিকে ভাসতে দেখেন তাঁরা। মিমিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মো. আবদুল কুদ্দুস প্রথম আলোকে বলেন, শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়।

আমিরাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আজিজুল হক আহাম্মদপুর এলাকায় বিয়ে বাড়িতে পুকুরের পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যুর খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু রোধে সবাইকে শিশুদের প্রতি যত্নশীল ও সচেতন হতে হবে।

সোনাগাজী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. খালেদ হোসেন বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন