রাজশাহী মহানগর পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) অনির্বান চাকমা বলেন, ভর্তি পরীক্ষার সময় প্রচণ্ড গাড়ির চাপ থাকে। যানজট এড়াতে ও ভর্তি–ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তবে বিভিন্ন জেলা থেকে অনেক সময় গাড়ি রিজার্ভ করে নিয়ে আসেন শিক্ষার্থীরা, সেগুলো সরাসরি ক্যাম্পাসে যেতে পারবে। তিনি বলেন, নির্দেশনাগুলো ইতিমধ্যে বিভিন্ন পরিবহন সমিতিতে চিঠির মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া তাদের ফোন করেও জানানো হয়েছে।

এদিকে ভর্তি পরীক্ষা সুশৃঙ্খলভাবে সম্পন্ন করতে যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে কিছু ট্রাফিক নির্দেশনা জারি করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী, ভর্তি পরীক্ষার দিন সকাল আটটার পর ক্যাম্পাসে কোনো ধরনের ভারী যানবাহন ঢুকতে পারবে না। ব্যক্তিগত গাড়ি ও অন্যান্য যানবাহন কাজলা ও বিনোদপুর গেট দিয়ে প্রবেশ করে প্রধান ফটক দিয়ে বেরিয়ে যাবে। কৃষি ও চারুকলা অনুষদে যাওয়ার ক্ষেত্রে মন্নুজান হল, বেগম খালেদা জিয়া হল, স্যার জগদীশচন্দ্র বসু একাডেমিক ভবন, তুঁতবাগান হয়ে চারুকলার দিকের রাস্তাটি সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। তবে শারীরিক প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থীরা সব রাস্তা ব্যবহার করতে পারবেন। এ ছাড়া চারুকলা ও কৃষি অনুষদে যাওয়ার জন্য রাজশাহী শহর থেকে আসা পরীক্ষার্থীদের ভদ্রা গেট এবং কাটাখালীর দিক থেকে আসা পরীক্ষার্থীদের ফল গবেষণা ও বিশ্ববিদ্যালয় ফায়ার সার্ভিসের পাশের রাস্তা ব্যবহারের অনুরোধ করা হয়েছে।

নির্দেশনায় আরও বলা হয়, সকাল আটটার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনমুখী সংযোগ সড়কগুলোতে ব্যক্তিগত গাড়ি, মোটরসাইকেল, অটোরিকশাসহ কোনো ধরনের যানবাহন ঢুকতে পারবে না। পরীক্ষাসংক্রান্ত ও চিকিৎসার কাজে ব্যবহৃত গাড়িগুলো নির্দেশের আওতামুক্ত থাকবে। ২৫ থেকে ২৭ জুলাই শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা তাঁদের ব্যক্তিগত গাড়িগুলো পার্কিংয়ের জন্য শাবাশ বাংলাদেশ ও জুবেরি ভবনের মাঠ ব্যবহার করতে পারবেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের পশ্চিমপাড়া আবাসিক এলাকায় বসবাসরত শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা ভর্তি পরীক্ষার দিনগুলোতে সকাল আটটা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত আবাসিক এলাকায় প্রবেশের ক্ষেত্রে শুধু কাজলা গেট ব্যবহার করবেন এবং বাইরে যাওয়ার ক্ষেত্রে প্যারিস রোড হয়ে প্রধান ফটক ও রোকেয়া হলের পেছনের রাস্তা (উড়ালসড়ক-সংলগ্ন) ব্যবহার করতে পারবেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আসাবুল হক বলেন, ক্যাম্পাসের ভেতরে কিছু ট্রাফিক নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে ক্যাম্পাসে সহজে দৃশ্যমান ব্যানার ও নির্দেশনা স্থাপন করা হয়েছে। ট্রাফিক নির্দেশনা বাস্তবায়নে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি বিএনসিসি, রোভার স্কাউট, রেঞ্জার সদস্যরা কাজ করবেন।

ট্রাফিক নির্দেশনার বিষয়ে রাজশাহী জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মাহাতাব হোসেন চৌধুরী জানান, তাঁরা ইতিমধ্যে এ বিষয়ে প্রচার চালিয়েছেন। এ নির্দেশনা বাস্তবায়নে সব পরিবহনকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছর তিন দিনের পরীক্ষায় তিন ইউনিটে অংশ নিচ্ছেন ১ লাখ ৭৮ হাজার ২৬৮ জন ভর্তি–ইচ্ছুক, যার মধ্যে এ ইউনিটে ৬৭ হাজার ২৩৭ জন, বি ইউনিটে ৩৮ হাজার ৬২১ এবং সি ইউনিটে ৭২ হাজার ৪১০ জন পরীক্ষা দেবেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন