জিডিতে ওই তরুণ অভিযোগ করেছেন, গত শুক্রবার রাতে ফেসবুকে তিনি তাঁর নামে একটি ভুয়া আইডি দেখতে পান। সেই আইডিতে ধর্মীয় অবমাননাকর পোস্ট দেখতে পান তিনি।

ওই তরুণ বলেন, এ ধরনের পোস্ট দেখে শুক্রবার রাতেই তিনি তাঁর বাবাকে নিয়ে শ্রীমঙ্গল থানায় যান। থানায় জিডি করেন।

শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামীম অর রশিদ তালুকদার বলেন, ‘আমরা ঘটনাটি খুবই গুরুত্বসহকারে নিয়ে তদন্তে নেমেছি। কারা এমনটা করেছে, সেই তথ্য বের করতে আমরা সব ধরনের চেষ্টা করছি। যে তরুণের নাম ব্যবহার করে ভুয়া আইডি খোলা হয়েছে, তাদের পরিবারকে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে।’

ওই তরুণের বাবা বলেন, ‘আমরা সব ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। কারা ফেসবুকে ভুয়া আইডি খুলে অবমাননাকর পোস্ট করেছে, আমরা কিছুই জানি না। শুক্রবার রাত থেকে আজ রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত থানায় পুলিশি হেফাজতে আছি। প্রশাসনের কাছে অনুরোধ, এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের দ্রুত খুঁজে বের করা হোক।’

মুহিবুর রহমান নামের স্থানীয় এক যুবক প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা যখন ফেসবুকে ধর্মীয় অবমাননাকর পোস্ট দেখি, তখন বুঝতে পারি, এটা ভুয়া আইডি। পরে আমরা এলাকার মেম্বারসহ ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা হিন্দু পরিবারের পাশে দাঁড়াই। এ কারণে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারেনি। আমাদের শ্রীমঙ্গলে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সব সময় ছিল, থাকবে। মূল আসামিকে দ্রুত খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন