সম্মেলন শেষে আজ শেষ বিকেলে পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ তাঁর বাসভবনে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় সাংবাদিকদের বলেন, তিন মেয়াদে ১৯ বছর দলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। জনপ্রিয়তার কারণে পৌর মেয়র হিসেবে তিন মেয়াদে দায়িত্ব পালন করছেন। তৃণমূল নেতা-কর্মীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে সাধারণ সম্পাদকের পদ ছেড়ে এবার তিনি সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। কিন্তু কাউন্সিলর বাছাই ও তালিকা সম্পন্ন না করেই উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন করা হয়েছে।

শাহনেওয়াজ আলীর অভিযোগ, ঘোষিত কমিটির সভাপতি আনিসুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদ আবদুল মতিন দলের জন্য নিবেদিত ও সক্রিয় নয়। তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে তাঁদের সম্পর্ক তেমন নেই। কেবল সংসদ সদস্যের অনুগত হওয়া এবং আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না রাখতে এই পকেট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

এ সময় সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হেলাল উদ্দিন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমানসহ অনুসারীরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

অভিযোগের বিষয়ে নাটোর–৪ আসনের সংসদ সদস্য আবদুল কুদ্দুসের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি সত্যেন্দ্রনাথ দত্তের কবিতার লাইন তুলে ধরে বলেন, ‘কুকুরের কাজ কুকুর করেছে/ কামড় দিয়েছে পায়/ তা বলে কুকুরে কামড়ানো কি রে/ মানুষের শোভা পায়?’

নতুন কমিটির সভাপতি আনিসুর রহমান বলেন, তাঁর কর্মকাণ্ডের কারণেই তৃতীয়বারে মতো সভাপতির পদ পেয়েছেন। সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন বলেন, একটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তিনি। দীর্ঘদিন সংসদ সদস্য আবদুল কুদ্দুসের সঙ্গে রাজনীতি করছেন। অনেকটা অপ্রত্যাশিতভাবেই পদটি পেয়েছেন তিনি।

আজ বেলা ১১টায় সম্মেলন শুরু হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনিসুর রহমানের সভাপতিত্বে সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন দলের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সংসদ সদস্য আবদুল কুদ্দুস, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া সুলতানা, তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক, নাটোর-১ আসনের সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শরিফুল ইসলাম, যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি কোহেলী কুদ্দুস প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সাংগঠনিক প্রতিবেদন তুলে ধরেন উপজেলা আওয়ামী লীগের বিদায়ী কমিটির সাধারণ সম্পাদক শাহনেওয়াজ আলী।