পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আজ সকালের দিকে উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নের বাঘেরটিকি রেলক্রসিং এলাকায় ঝোপের মধ্যে এক নারীর লাশ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় লোকজন। খবর পেয়ে বেলা একটার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। কিন্তু তখন ওই নারীর পরিচয় শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। পরে পিবিআইয়ের মৌলভীবাজার কার্যালয়ের একটি দল ওই নারীর আঙুলের ছাপ নিয়ে যায়। এরপর তারা ওই নারীর পরিচয় শনাক্ত করে।

কুলাউড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম রাত সাড়ে আটটার দিকে মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, পিবিআই জাতীয় পরিচয়পত্রের সার্ভারের সঙ্গে ওই নারীর আঙুলের ছাপ পরীক্ষা করে। এতে তা মিলে যায়। আখলিমার স্বজনদের মুঠোফোনের নম্বর সংগ্রহ করে তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ হয়েছে। তাঁরা জানিয়েছেন, আখলিমা ১০-১৫ বছর ধরে মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন ছিলেন। মাঝেমধ্যে কাউকে কিছু না বলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়তেন। স্বজনেরা কুলাউড়ায় রওনা দিয়েছেন।

পরিদর্শক আমিনুল বলেন, সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির সময় ওই নারীর শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়নি। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মৌলভীবাজার জেলা সদরে অবস্থিত ২৫০ শয্যার হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। স্বজনেরা আসার পর এ ব্যাপারে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন