বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সন্ধ্যা সাতটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের পাশে গাজী কালু টিলা লাগোয়া নিউজিল্যান্ড এলাকা দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ফেরার পথে কয়েকজন শিক্ষার্থী বুলবুল আহমেদের রক্তাক্ত শরীর মাটিতে পড়ে থাকতে দেখেন। ওই শিক্ষার্থীরা তাঁকে উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে যান। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় তাঁকে তাৎক্ষণিকভাবে সিলেটের এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। রাত পৌনে আটটার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। চিকিৎসকেরা জানান, ছুরিকাঘাতের কারণে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে ওই শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে।

সিলেটের জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. নাজমুল হুদা খান প্রথম আলোকে বলেন, কে বা কারা বুলবুলকে ছুরিকাঘাত করেছে, তা এখনো জানা যায়নি। বিষয়টি তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে পুলিশ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন