ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেন, বিকেল আড়াইটার দিকে চশমা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে ছোট ডালিমা গ্রামে ১০-১২ জনের একটি দল প্রচারণায় নামেন। বিকেল পাঁচটার দিকে তাঁরা স্থানীয় আবদুল মজিদ বয়াতি বাড়িতে ঢুকলে আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মী মো. বশির সিকদার (২৫) ও মো. আনোয়ারের (৩৫) নেতৃত্বে চারজনের একটি দল হামলা চালায়। ওই সময় হামলাকারীরা মোসা. সাবিনা (৩২) ও মো. জসিম (৩৫) নামে দুই কর্মীকে মারধর করে দুটো মুঠোফোন ও প্রায় দুই হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যান।

বাউফল থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, হামলাকারী বশির ও আনোয়ার একাধিক মামলার আসামি।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আল মামুন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে বশির ও আনোয়ারের মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। তবে বাউফল থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বশির ও আনোয়ার একাধিক মামলার আসামি।

এর আগে গত শনিবার বিকেলে বড় ডালিমা স্বনির্ভর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এলাকায় চশমা প্রতীকের প্রচারণায় হামলার অভিযোগ পাওয়া যায়। ওই ঘটনায় বিউটি আক্তার (৩৫) নামে এক নারীকে লাঞ্ছিত করে তাঁর সোনার চেন ছিনিয়ে নেন আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর এক কর্মী। ওই ঘটনায় বিউটি আক্তার বাউফল থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

গত ৭ ফেব্রুয়ারি নাজিরপুর ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মো. আমির হোসেন ব্যাপারী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তিনি শপথ নেওয়ার আগেই ১৯ ফেব্রুয়ারি হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। একই ইউপির ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার) মো. মিজানুর রহমান ৩ মার্চ স্ট্রোক করে মারা যান। এ কারণে ওই শূন্য দুটি পদে উপনির্বাচন হচ্ছে। আগামী ২৭ জুলাই উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন