এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বজলুর রশীদ বলেন, ‘পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অবিলম্বে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ ও অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের দাবি করছি। সব ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘুদের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সরকারের দায়িত্ব। কিন্তু প্রশাসনের উদাসীনতায় এমন ন্যক্কারজনক ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটছে।’

বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বাসদ বরিশাল জেলা শাখার সদস্যসচিব মনীষা চক্রবর্তী। তিনি বলেন, সারা দেশে অব্যাহতভাবে বিভিন্ন ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা, নির্যাতন, ভূমি দখলের ঘটনা ঘটলেও সরকার ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে কার্যকর কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। বরং নানাভাবে পৃষ্ঠপোষকতা দেওয়া হয়েছে। অনেক ক্ষেত্রে সরকারদলীয় লোকেরাই এসব সাম্প্রদায়িকতার সঙ্গে যুক্ত থাকার প্রমাণ পাওয়া যায়। এর ফলেই একের পর এক হামলা নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে।

সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন, বাসদ বরিশাল জেলা শাখার সদস্য শহিদুল ইসলাম, সন্তু মিত্র, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের বরিশাল মহানগর শাখার সদস্য অদিতি ইসলাম। সমাবেশে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য দেন উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর ঢাকা জেলা শাখার সংগঠক শফিকুল ইসলাম।

সমাবেশে বক্তারা সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে বাম প্রগতিশীল শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন