বিএনপির সমাবেশ কেন্দ্র করে ইজতেমা পেছানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে কি না, এমন প্রশ্নে অতিরিক্ত উপকমিশনার সুদীপ দাস বলেন, এমন কোনো তথ্য তাঁর কাছে নেই। মূলত ওই দুই দিনের ইজতেমায় অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে বলেন গোয়েন্দা সূত্রে তথ্য আসে। এরপর সংগঠনটিকে ইজতেমা পেছাতে বলা হয়েছে। তিনি বলেন, এর আগে পুলিশের পক্ষ থেকে ইজতেমা আয়োজনের অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

১২ নভেম্বর সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে আঞ্জুমানে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ। ওই সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছিল, ধর্মীয় ও অরাজনৈতিক এ সংগঠনের ৭৭ বছর পূর্তি উপলক্ষে সিলেটে দুই দিনব্যাপী ইজতেমার আয়োজন করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় ট্রাক টার্মিনালে বৃহস্পতিবার ফজরের নামাজের পরপরই শুরু হয়ে পরদিন শুক্রবার বাদ জুমা ইজতেমা শেষ হওয়ার কথা ছিল।

ইজতেমা আয়োজনের জন্য টার্মিনালে প্যান্ডেল ও মঞ্চ তৈরির কাজ প্রায় শেষ হয়ে গিয়েছিল। এরই মধ্যে পুলিশের পক্ষ থেকে ইজতেমা পেছানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

যোগাযোগ করা হলে আঞ্জুমানে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা শাব্বীর আহমদ বলেন, সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।