জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, ‘সরকার বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নে মাসে দুই হাজার কোটি টাকা খরচ করছে। যারা বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়ন করছে, তারা সরকারের কাছ থেকে ৩০ হাজার কোটি টাকা বকেয়া পাবে। দেশের ব্যাংকগুলোকে বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ ঋণ দিতে বলা হয়েছে। অথচ এ টাকা দিয়ে বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়ন হবে, নাকি দেশের বাইরে পাচার হবে বলা যাচ্ছে না।’

জি এম কাদের বলেন, ‘দেশের প্রতিটি সংকটে আমরা সরকারকে সহায়তা করতে প্রস্তুত আছি। কিন্তু সরকার আমাদের ডাকছে না। অথচ দেশের মানুষ উৎকণ্ঠার মধ্যে বর্তমান পরিস্থিতি জানতে চাচ্ছে। কিন্তু সরকার কোনো কিছুই পরিষ্কার করছে না।’

জাপা চেয়ারম্যান আরও বলেন, ‘আমরা সরকারের অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলব এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু আমাদের কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না। কেউ সরকারের বিরুদ্ধে কথা বললে বা মিছিল-মিটিং করলেই তাঁদের নামে মামলা দেওয়া হচ্ছে। এমনকি হেলমেট বাহিনী দিয়ে তাঁদের দমন করা হচ্ছে। কেউ ভয়েও সরকারের অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলছে না। এ জন্য ভবিষ্যতে জাতীয় পার্টিকে রাষ্ট্রক্ষমতায় আনতে হবে। জাতীয় পার্টি দেশের উন্নয়নের জন্য কাজ করে অনিয়ম-দুর্নীতি রুখে দেবে।’

দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও বরিশাল-৬ (বাকেরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য বেগম নাসরিন জাহানের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় দলের কো-চেয়ারম্যান রুহুল আমিন হাওলাদার, সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সোলায়মান শেঠ, শামীম হায়দার পাটোয়ারী, লিয়াকত হোসেন, সংসদ সদস্য সোহেল রানা, নূর ইসলাম তালুকদার, কেন্দ্রীয় মহিলা পার্টির সাধারণ সম্পাদক নাজমা আক্তার, ঢাকা সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর শফিকুল ইসলামসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন