জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল প্রথম আলোকে বলেন, তিনি একটি স্মারকলিপি পেয়েছেন। আজ বুধবার যথাযথ প্রক্রিয়া মেনে তিনি প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠানোর ব্যবস্থা করবেন।

স্মারকলিপিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কৈশোর থেকে দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনের বর্ণনা দেওয়া হয়েছে। এতে শোষিত-বঞ্চিত, নির্যাতিত-নিপীড়িত বাঙালির অধিকার আদায়ের সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর ত্যাগের মহিমা তুলে ধরা হয়। এ ছাড়া ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার ও কয়েকজন আসামির রায় কার্যকরের ঘটনা উল্লেখ করা হয়।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, আগস্টের নির্মম হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যের নীলনকশা প্রণয়নকারী ও কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচন করে তাঁদের বিচারের মুখোমুখি করলেই কেবল বঙ্গবন্ধু হত্যার পাপ থেকে দায়মুক্তি পেতে পারে দেশ। এ জন্য রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ ’৭৫-এর নির্মম হত্যাকাণ্ডের কুশীলবদের চিহ্নিত করতে একটি তদন্ত কমিশনের দাবি করছে।

স্মারকলিপিতে মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল ও সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার স্বাক্ষর করেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন