কক্সবাজার বিমানবন্দর
ছবি: সংগৃহীত

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় মোখার প্রভাবে কক্সবাজারের আবহাওয়া পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে। আজ শনিবার সকাল সাতটা থেকে কক্সবাজার বিমানবন্দর বন্ধ রাখা হয়েছে। ফলে সকাল সাতটা থেকে কক্সবাজার থেকে সব রুটে সব ধরনের উড়োজাহাজ চলাচল বন্ধ আছে। কাল রোববার সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত এই রুটে উড়োজাহাজ চলাচল বন্ধ থাকবে।

আজ দেওয়া ১৩ নম্বর বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ঘূর্ণিঝড়কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার। যা দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়ার আকারে ১৭০ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়ছে। কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর খুবই বিক্ষুব্ধ রয়েছে। এ জন্য কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৮ নম্বর মহাবিপৎসংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। পায়রা ও মোংলা সমুদ্রবন্দরকে ৪ চার নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্যমতে, ঘূর্ণিঝড় মোখা কক্সবাজার উপকূল থেকে ৮৬০ কিলোমিটার দূরে দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছে। অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় মোখা বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্ব উপকূলের দিকে এগিয়ে আসছে। আজ সন্ধ্যায় কক্সবাজার, টেকনাফ ও সেন্ট মার্টিনের কাছাকাছি উপকূলীয় এলাকায় ঘূর্ণিঝড়ের অগ্রভাগের প্রভাব পড়তে পারে। কাল রোববার সকাল ছয়টা থেকে সন্ধ্যা ছয়টার মধ্যে ঘূর্ণিঝড়টি কক্সবাজার ও উত্তর মিয়ানমারের উপকূল অতিক্রম করতে পারে। সকাল থেকে কক্সবাজারের আকাশ মেঘলা। আগের রাতে থেমে থেমে হালকা বৃষ্টিপাত হলেও আজ সকাল আটটা পর্যন্ত জেলার কোথাও ঝোড়ো বাতাস ছুটতে দেখা যায়নি।

কক্সবাজার বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক মো. গোলাম মোর্তজা প্রথম আলোকে বলেন, ঘূর্ণিঝড় মোখার প্রভাবে কক্সবাজার উপকূলে ৮ নম্বর মহাবিপৎসংকেত জারি করা হয়েছে। কাল সন্ধ্যার আগে ঘূর্ণিঝড় মোখা কক্সবাজারে আঘাত হানার কথা বলা হচ্ছে। জানমালের নিরাপত্তা ও ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে আজ শনিবার সকাল সাতটা থেকে কাল সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত কক্সবাজার বিমানবন্দরের সেবা কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়েছে।

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়, কক্সবাজার-ঢাকা রুটে প্রতিদিন বাংলাদেশ বিমান, ইউএস–বাংলা, নভোএয়ারসহ চারটি সংস্থার অন্তত ১০টি উড়োজাহাজ চলাচল করছে। দৈনিক অন্তত ৪০টির বেশি ফ্লাইট পরিচালনা করা হয়। তা ছাড়া কক্সবাজার উপকূলের হ্যাচারিগুলোয় উৎপাদিত বাগদা চিংড়ির পোনা খুলনায় পরিবহন করা হয় কক্সবাজার বিমানবন্দর দিয়ে একাধিক কার্গো উড়োজাহাজে। নিষেধাজ্ঞার কারণে আজ সকাল থেকে কক্সবাজার-যশোর রুটেও কার্গো উড়োজাহাজের চলাচল বন্ধ আছে।

বিমানবন্দরের নিরাপত্তাকর্মীরা বলেন, সকাল ছয়টার দিকে কিছু যাত্রী ঢাকায় যেতে কক্সবাজার বিমানবন্দরে পৌঁছালেও কার্যক্রম বন্ধ রাখার খবর পেয়ে তাঁরা হোটেলে ফিরে গেছেন।

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কক্সবাজার বিমানবন্দরে সব ধরনের উড়োজাহাজ চলাচল আগামীকাল সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।