গতকাল শুক্রবার রাত আটটার দিকে বাহির চর দৌলতদিয়ার সাত্তার মেম্বার পাড়ার জেলে সাইদ হালদারের জালে কাতলা মাছটি ধরা পড়ে। পরে স্থানীয় রওশন মোল্লার আড়তে নেওয়া হলে মৎস্য ব্যবসায়ী আলমগীর মোল্লা মাছটি কিনে নেন।

ফেরিঘাট এলাকার মাছ ব্যবসায়ী মো. আলমগীর মোল্লা বলেন, ‘মাছটি নিলামে তুললে সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে কিনে নিই। মাছটি কেনার পর ফেরিঘাট পন্টুনের সঙ্গে বেঁধে রাখলে উৎসুক জনতা দেখতে ভিড় করেন। আজ শনিবার সকালে প্রতি কেজিতে ১০০ টাকা লাভে ১ হাজার ৭০০ টাকা কেজি দরে ৩০ হাজার টাকায় ফরিদপুরের এক ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করে দিই।’

গোয়ালন্দ উপজেলার মৎস্য কর্মকর্তা শাহ মো. শাহারিয়ার জামান বলেন, পদ্মা নদীতে মাঝে মধ্যে বড় মাছ দেখা যায়। সাধারণ মানুষ কিনতে না পারলেও যাঁদের টাকা আছে, তাঁরা খবর পেয়েই কিনে নেন। বড় মাছে জেলেদের পাশাপাশি ব্যবসায়ীরা ভালো দাম পেয়ে খুশি হন। নদীতে পানির সঙ্গে স্রোত কম থাকলে পাঙাশ, রুই, কাতলা, বোয়ালসহ দেশীয় বড় বড় মাছ আরও ধরা পড়বে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।