আহত ফুলজান বলেন, তাঁর ভাইয়ের স্ত্রী মনোয়ারা খাতুন ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। গতকাল বুধবার রাতে তিনি মনোয়ারাকে দেখতে আসেন। রাতে তিনি রোগীর পাশে ছিলেন। আজ সকালে রোগীর শয্যার পাশে খালি জায়গায় বিছানা পেতে শুয়েছিলেন। হঠাৎ করে ছাদ থেকে পলেস্তারা খসে পড়লে ডান পায়ে আঘাত পান তিনি। এ সময় তাঁর ডান পাশের শয্যায় থাকা মৌসুমী মুখে আঘাত পান। তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য যশোরে পাঠানো হয়েছে।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মাজহারুল ইসলাম বলেন, সকালে হঠাৎ করে মহিলা ওয়ার্ডের ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ে। এ সময় এক রোগী ও আরেক রোগীর স্বজন আহত হয়েছেন। এ ছাড়া বড় কোনো সমস্যা হয়নি। বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। দুর্ঘটনার বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জাননো হয়েছে।