খান শাহীন সাজ্জাদ অভিযোগ করেন, তিনি ও তাঁর সমর্থক সালামাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শামীম আহমেদ নির্বাচনী কাজ শেষে কালিয়া পৌরসভার সামনে অবস্থান করছিলেন। রাত ১০টার দিকে প্রতিদ্বন্দ্বী সদস্য প্রার্থী রবিউল ইসলাম খানের সমর্থকেরা তাঁর ও শামীম আহমেদের প্রাইভেট কার ভাঙচুর করেন। এ সময় ঠেকাতে গেলে তাঁর গাড়িচালক জামাল হোসেনের মাথায় আঘাত করেন হামলাকারী ব্যক্তিরা।

প্রতিদ্বন্দ্বী সদস্য প্রার্থী রবিউল ইসলাম কালিয়া উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক। তিনি অভিযোগের বিষয়ে বলেন, ‘কারা ওই ঘটনা ঘটিয়েছে জানি না। এটি আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।’

সহকারী পুলিশ সুপার (কালিয়া সার্কেল) প্রণব কুমার সরকার বলেন, এ ব্যাপারে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। পুলিশ তৎপর রয়েছে।

এ বিষয়ে নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন আজ রোববার দুপুরে প্রথম আলোকে মুঠোফোনে বলেন, ওই এলাকায় জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও অতিরিক্ত পুলিশ টহল দিচ্ছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।