পুলিশ ও এলাকার কয়েক বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আশরাফুল আলম প্রাইভেট কার চালিয়ে টাঙ্গাইলের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় একটি মোটরসাইকেলে শাহিন, শামিম, রাজু ও রাজুর মেয়ে রাইসা আক্তার গাজীপুরের দিকে যাচ্ছিলেন। কোনাবাড়ী উড়ালসড়কের ওপর প্রাইভেট কার ও মোটরসাইকেলের সংঘর্ষ হয়। এতে মোটরসাইকেলে থাকা শাহিন ও রাজু উড়ালসড়ক থেকে ছিটকে নিচে পড়ে যান। এ সময় শাহিন, শামিম ও রাজু ঘটনাস্থলেই মারা যান। গুরুতর আহত হয় একই মোটরসাইকেলে থাকা শিশু রাইসা আক্তার।

পরে আশপাশের লোকজন হতাহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক শাহিন, শামিম ও রাজুকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত রাইসাকে ওই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

গাজীপুর মেট্রোপলিটনের কোনাবাড়ী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ইমতিয়াজ হোসেন জানান, মোটরসাইকেলটি উল্টো দিক থেকে আসছিল নাকি গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পেছন থেকে ধাক্কা দিয়েছে, সেটা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে হতাহত ব্যক্তির সবাই একই মোটরসাইকেলের যাত্রী ছিলেন। কারের চালককে আটক করা হয়েছে। তিনিও সামান্য আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন