জানতে চাইলে চকরিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ জুয়েল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, দেখে মনে হয়েছে, ওই যুবককে অন্য কোথাও হত্যা করে লাশ সংরক্ষিত নির্জন বনে ফেলে রাখা হয়েছে। যুবকের পরনে সাদা হাতাকাটা গেঞ্জি থাকলেও প্যান্ট ছিল না। শরীর পচে যাওয়ায় আঘাতের চিহ্ন বোঝা যাচ্ছে না।

সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিট আলামত সংগ্রহ করেছে জানিয়ে মোহাম্মদ জুয়েল ইসলাম বলেন, পরিচয় শনাক্তে লাশের ডিএনএ পরীক্ষার চেষ্টা চলছে। আজ সন্ধ্যায় লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। যুবকের পরিচয় শনাক্ত ও হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদ্‌ঘাটনের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়া উপজেলার দক্ষিণ ছাইরাখালী গ্রামের পাশে কয়েক হাজার একর সংরক্ষিত বনাঞ্চল রয়েছে। আজ দুপুরে বনাঞ্চলের ভেতরে ঝোপের মধ্যে অর্ধগলিত লাশটি পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় কয়েকজন কাঠুরিয়া। এরপর পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। বেলা তিনটার দিকে চকরিয়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশটি উদ্ধার করে।

লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেন চকরিয়া থানার উপপরিদর্শক শরীফুল ইসলাম। তিনি বলেন, লাশের শরীর ফুলে মুখমণ্ডলে পচন ধরেছে। লাশ দেখে পরিচয় শনাক্ত করার উপায় নেই।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন