স্থানীয় গ্রাহকেরা বলছেন, এ উপজেলায় এমনিতেই পল্লী বিদ্যুতের লোডশেডিং চলছে। দিনে তিন থেকে চারবার বিদ্যুৎ আসা–যাওয়া করে। উপজেলার দক্ষিণাংশে এ অবস্থা হলেও রাউজান পৌর এলাকায় লোডশেডিং তুলনামূলক কম বলে জানিয়েছেন গ্রাহকেরা।

উপজেলার নোয়াপাড়া, উরকিরচর ও বাগোয়ান ইউনিয়নের অন্তত ১০ জন গ্রাহকের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আজ সকাল ৬টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ৯ ঘণ্টা বিদ্যুৎ ছিল না। এ কারণে তাঁদের দৈনন্দিন কর্মকাণ্ডে ব্যাঘাত ঘটে। গরমে শিশু ও বয়স্ক ব্যক্তিরা দুর্ভোগে পড়েন।

নোয়াপাড়া ইউনিয়নের বাসিন্দা আনিসুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, তাঁদের কচুখাইন গ্রামে ২০ হাজার মানুষের বসবাস। আজ সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত কোনো ঘরেই বিদ্যুৎ ছিল না।

উরকিরচর ইউনিয়নের সওদাগরপাড়ার বাসিন্দা ব্যবসায়ী মুহাম্মদ বেলাল উদ্দিন বলেন, বিদ্যুৎ এমনিতেই ইদানীং এই যায় এই আসে। আজ টানা দীর্ঘক্ষণ বিদ্যুৎ না থাকায় ভোগান্তিতে পড়তে হয়।