মামলা ও আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০০৬ সালের ১০ মার্চ গাবতলী উপজেলার শীলদহবাড়ী গ্রামের কৃষক নুরুল ইসলাম তাঁর বাড়ির পাশে বিরোধপূর্ণ একটি জমিতে লাউয়ের মাচা তৈরি করছিলেন। এ সময় প্রতিবেশী আসাদ আলী ওই জায়গার মালিকানা দাবি করলে দুজনের মধ্য বাগ্‌বিতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে প্রতিপক্ষের লোকজন হামলা করলে নুরুল ইসলাম গুরুতর আহত হন।

পরে স্থানীয় লোকজন নুরুল ইসলামকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার তাঁকে বগুড়ার মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে ভর্তি করেন। দিবাগত রাত তিনটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ ঘটনায় নুরুলের স্ত্রী মোমেনা খাতুন বাদী হয়ে তিনজনকে আসামি করে গাবতলী মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন। সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আজ অভিযুক্ত আসেদ আলীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন আদালত।