ফায়ার সার্ভিস নিখোঁজের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আমির তাঁর স্ত্রীর বড় ভাইয়ের মেয়ের বিয়েতে পরিবার নিয়ে কলসি ফুকরা গ্রামে বেড়াতে আসেন। গতকাল দুপুরে তিনি বাড়ির পাশে মধুমতি নদীতে গোসল করতে নামেন। গোসলের একপর্যায়ে তিনি নদীর স্রোতে মাঝ নদীতে ভেসে যান। এ সময় নদীতে গোসল করতে থাকা কয়েকজন তাঁকে উদ্ধারের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন।

এরপর স্থানীয় লোকজন খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে গোপালগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসে খবর দেন। পরে খুলনা ফায়ার সার্ভিসের পাঁচ সদস্যের একটি ডুবুরিদল ঘটনাস্থলে এসে উদ্ধারকাজ শুরু করে।

গোপালগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন কর্মকর্তা এস এম আরিফুল হক বলেন, ‘নদীতে তীব্র স্রোত থাকায় উদ্ধার অভিযান ব্যবহৃত হচ্ছে। আমাদের অভিযান গতকাল রাত ৮টা পর্যন্ত চললেও নিখোঁজ আমিরের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। আজ সকাল ৮টা থেকে পুনরায় উদ্ধার অভিযান শুরু হয়েছে।

এ ঘটনায় বিয়েবাড়িসহ ওই এলাকায় শোকের ছায়া নেয়ে এসেছে। গতকাল রাতের পর আজ সকালেও মধুমতি নদীর ঘাটে কয়েক শ গ্রামবাসী ভিড় করেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন