সম্প্রতি সারা দেশে শিক্ষকদের নিয়ে ঘটে যাওয়া ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তারা বলেন, ‘শুধু একজন শিক্ষককে হত্যা কিংবা জুতার মালা পরানো হয়নি, সারা দেশের শিক্ষকসমাজকে জুতার মালা পরানো হয়েছে। দেশের মানুষের জন্য, মানুষের অধিকারের জন্য সর্বোপরি মানুষ গড়ার কারিগর হিসেবে আমরা কাজ করতে চাই। আমরা এভাবে আর মানববন্ধনে দাঁড়াতে চাই না।’

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘শিক্ষকেরা সারাজীবন তাঁদের জ্ঞান, শ্রম ও মেধা দিয়ে শিক্ষার্থীদের মানুষ হিসেবে গড়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। এর ফলশ্রুতিতে শিক্ষকেরা এ লাঞ্ছনা উপহার পাবে, তা খুবই কষ্টের ও দুঃখজনক। আমরা চাই, শিক্ষকের সঙ্গে সব সময় শিক্ষার্থীদের মধুর সম্পর্ক গড়ে উঠুক। কিন্তু সম্প্রতি একটি অশুভ শক্তি এটি নষ্ট করার চেষ্টা করছে। আমরা এ অশুভ শক্তির কঠিন শাস্তি চাই।’

সাম্প্রদায়িক হামলার বিষয়ে বক্তারা বলেন, যারা স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে বিশ্বাস করে না, সেই অপশক্তিই বারবার বিভিন্ন ইস্যুকে কেন্দ্র করে অপতৎপরতা চালাচ্ছে। এসব ঘটনা নিশ্চিতভাবেই একশ্রেণির ধর্ম ব্যবসায়ী ও স্বার্থান্বেষী মানুষের অপতৎপরতার ফল। উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে এ দেশের অসাম্প্রদায়িক চেতনা ও মূল্যবোধকে চরমভাবে আঘাত করবার জন্যই এগুলো ঘটানো হচ্ছে।

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সদস্য, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, অনুষদের ডিন, হল প্রভোস্টসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকেরা উপস্থিত ছিলেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন