আহত ব্যক্তিরা হলেন একই গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে রাহুল হোসেন (১৯), দর্শনা থানার কুড়ালগাছি ইউনিয়নের সড়াবাড়িয়া গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে হৃদয় হোসেন (২০), চণ্ডীপুরের তারিকুল ইসলামের ছেলে রাতুল হোসেন (১৯) ও ধান‍্যঘরার আবুল কাশেমের ছেলে রাজু হোসেন (১৯)। তাঁদের সদর হাসপাতালের সার্জারি (পুরুষ) বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত‍্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আনিদুল ও রাহুল একটি মোটরসাইকেলে চড়ে দর্শনা থেকে কার্পাসডাঙ্গার দিকে যাচ্ছিলেন। চণ্ডীপুর বাজার মসজিদের সামনে বাঁশবোঝাই একটি ভটভটিকে পাশ কাটিয়ে সামনে যাওয়ার সময় বিপরীত দিক থেকে আসা আরেকটি মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। দুটি মোটরসাইকেলে থাকা পাঁচজন এ সময় দর্শনা-মুজিবনগর মহাসড়কের ওপর ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন।

স্থানীয় লোকজন তাৎক্ষণিকভাবে আহত পাঁচজনকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেন। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মো. আবদুল কাদের মোটরসাইকেলচালক আনিদুলকে মৃত ঘোষণা করেন। বাকি চারজনকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়।

দর্শনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লুৎফুল কবীর জানান, হতাহত ব্যক্তিরা সবাই বয়সে তরুণ। দ্রুতগতিতে মোটরসাইকেল চালানোর কারণে দুর্ঘটনা ঘটেছে। মোটরসাইকেল দুটি দর্শনা থানা–পুলিশের হেফাজতে আছে।