শাহিন হালদার বলেন, আজ সকালে কয়েকজন জেলের সঙ্গে পদ্মা নদীতে মাছ ধরতে যান তিনি। সকাল ছয়টার দিকে দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের কাছে জাল ফেলে টেনে তোলার সময় বোয়াল মাছটি আটকা পড়ে। পরে মাছটি বিক্রির জন্য সকাল নয়টার দিকে দৌলতদিয়ার ৬ নম্বর ফেরিঘাট–সংলগ্ন একটি আড়তে আনেন। সেখান থেকে স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ী মো. চান্দু মোল্লা ২ হাজার ৪০০ টাকা কেজিতে মোট ৩৬ হাজার টাকায় মাছটি কিনে নেন।

গোয়ালন্দ উপজেলার মৎস্য কর্মকর্তা শাহ মো. শাহারিয়ার জামান বলেন, বর্তমানে পদ্মা নদীতে পানির সঙ্গে স্রোত কমেছে। এ অবস্থায় পাঙাশ, রুই, কাতলা, বোয়ালসহ দেশীয় বড় প্রজাতির মাছ আরও ধরা পড়বে বলে তিনি আশা করেন।