এলাকাবাসী ও থানা–পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বেতগাড়ি বাজারের পাশে এক প্রবাসীর একটি একতলা বাড়ি আছে। দীর্ঘদিন ওই বাসায় কেউ ছিল না। স্থানীয় একজন এনজিওকর্মী বাসাটি ভাড়া নিয়ে গতকাল সন্ধ্যার আগে সেখানে যান। এ সময় বাসায় আসবাবপত্র ওঠাতে গিয়ে উৎকট দুর্গন্ধ পেয়ে এক রিকশাচালককে বাসার ছাদে পাঠান তিনি। এরপর রিকশাচালক ছুটে এসে বাসার ছাদে লাশ আছে বলে জানালে শোরগোল শুরু হয়। রাত ৯টার দিকে থানা–পুলিশ গিয়ে অর্ধগলিত লাশটি উদ্ধার করে।

গঙ্গাচড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দুলাল হোসেন বলেন, অর্ধগলিত লাশটি ওই পাকা বাসার ছাদে উপুড় হয়ে লম্বালম্বি অবস্থায় পড়ে ছিল। পরনে নীল গেঞ্জি, লুঙ্গি এবং গলায় লাল গামছা প্যাঁচানো ছিল। লাশটির পরিচয় শনাক্ত ও ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

রংপুর জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল-এ) আবু তৈয়ব মো. আরিফ হোসেন বলেন, সিআইডির মাধ্যমে আঙুলের ছাপসহ প্রয়োজনীয় আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন