নিহত ব্যক্তির নাম মো. হাশেম মাঝি (৫৮)। তিনি বুড়িরচর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের রেহানিয়া গ্রামের বাসিন্দা। খবর পেয়ে হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে পুলিশ নিহত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকেলে বাড়ির সীমানার জায়গা নিয়ে পূর্ববিরোধের জের ধরে উপজেলার রেহানিয়া গ্রামের মো. হানিফের স্ত্রীর সঙ্গে প্রতিবেশি ফয়েজের কথা–কাটাকাটি হয়।

এর জের ধরে সন্ধ্যায় হানিফ ও তাঁর দুই ছেলে মো. হোসেন ও সাগরসহ কয়েকজন স্থানীয় ব্যক্তি রহমতপুর বাজারে ফয়েজের ওপর হামলা চালায়। এ সময় সেখানে থাকা একই গ্রামের মো. হাশেম মাঝি (৫৮) তাঁদের থামাতে গেলে হানিফের ছেলেরা রড দিয়ে তাঁর মাথায় আঘাত করেন। এতে তাঁর মাথা ফেটে যায়। তাৎক্ষণিক স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে রাত সোয়া সাতটার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আমির হোসেন বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে নয়টায় প্রথম আলোকে বলেন, ঘটনার পরপরই হামলার ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। রাত নয়টার দিকে সন্দেহভাজন একজনকে আটক করা হয়েছে। হামলায় জড়িত অন্য ব্যক্তিদের আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এ ঘটনায় থানায় নিহত ব্যক্তির পরিবারের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।