সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে শোনা যায়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে দেওয়া বক্তব্যের একপর্যায়ে তিনি ‘জান্নাতের’ বদলে ‘জাহান্নাম’ উচ্চারণ করেন।

অনুষ্ঠানটি আওয়ামী লীগের বিভিন্ন নেতা–কর্মী ও সাংবাদিকেরা ফেসবুকে লাইভ ও ভিডিও ধারণ করেছিলেন। রাজীবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি খাইরুল ইসলাম তাঁর নিজ আইডি থেকে ফেসবুকে ভিডিওটি শেয়ার করেন। বক্তব্যের সমালোচনা করে ফেসবুকে নিজের আইডি থেকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনও।

বিষয়টি নিয়ে পরে রাজীবপুরে ব্রিফিং করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। তিনি বলেন, বক্তৃতার একপর্যায়ে প্রথমে স্লিপ অব টাং হয়ে ‘জাহান্নাম’ কথাটা এসেছে। তার পরে পরেই সংশোধন করে তিনি তিনবার, চারবার ‘জান্নাত’ শব্দটা উচ্চারণ করেন।

জাকির হোসেন বলেন, ‘আমি যে সরি বলে বাকি অংশটুকু কইছি, এটুকু আর তাঁরা (ফেসবুকে শেয়ারকারীরা) দেয়নি। উপরের কথাগুলোও দেয়নি, নিচের কথাটুকুও দেয়নি। আমার ওই (বক্তব্যের) ভুল অংশটুকু তারা তুলে দিয়ে আমাকে সামাজিকভাবে, রাজনৈতিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করতেছে।’

ভুলের জন্য সবার কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা করে ব্রিফিংয়ে প্রতিমন্ত্রী জানান, এ বিষয়ে তিনি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।

এদিকে সোমবার রাতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বিষয়টির ব্যাখ্যা দিয়ে একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন। সেখান বলা হয়, প্রতিমন্ত্রী বক্তৃতার একপর্যায়ে মুখ ফসকে 'জাহান্নাম' শব্দ উচ্চারণ করে ফেলেন। সঙ্গে সঙ্গে তিনি সেটি সংশোধন করে নেন। বিষয়টি নিয়ে কেউ বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত প্রচারণা চালালে তাঁর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন প্রতিমন্ত্রী।