পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উপজেলার ফরিদপুর গ্রামের জহুরুল ইসলামের কাছ থেকে শ্যালো মেশিন ভাড়া নিয়ে একই গ্রামের আবদুল বারিক তাঁর ধানের জমিতে সেচ দিয়েছিলেন। ওই সেচযন্ত্রের ভাড়া পাওনা নিয়ে জহুরুলের সঙ্গে বারিকের বিরোধ ছিল। আজ সকালে বারিক ওই জমিতে ধান কাটতে গেলে জহুরুল ও তাঁর লোকজন বাধা দেন। বাগ্‌বিতণ্ডার একপর্যায়ে সংঘর্ষে জড়ায় দুই পক্ষ। সংঘর্ষে জহুরুলের ছেলে মজিবর রহমান (৩০), মাহমুদুল ইসলাম (২৫) এবং অন্য পক্ষে বারিক (৪৫), তাঁর ছেলে রাব্বি ও ছোট ভাই আবদুল কাপি (৪২) গুরুতর আহত হন। তাঁদের উদ্ধার করে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল ইসলাম বলেন, জমির ধান কাটা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। সংঘর্ষে হতাহতদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।