জেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, স্বল্প সময়ে ভালো ফলন ও বেশি দাম পাওয়া যায়, এমন জাতের নতুন নতুন আমবাগান গড়ে উঠছে জেলায়। জেলায় চলতি বছর ২৯ হাজার ৪৭৫ হেক্টর জমিতে আম চাষ হয়েছে। এ জেলায় সবচেয়ে বেশি আম্রপালি জাতের আমের চাষ হয়েছে।

নতুন করে চাষ হওয়া আমবাগানের অধিকাংশই নাবি জাতের আম। নাবি জাতের আমের মধ্যে চলতি বছর জেলায় আশ্বিনা আমের আবাদ হয়েছে ১ হাজার ৯৪৩ হেক্টর জমিতে। বারি আম-৪ চাষ হয়েছে ১ হাজার ৪৪৮ হেক্টর জমিতে। গত বছরের চেয়ে ৫৯২ হেক্টর বেড়ে এবার জেলায় গৌড়মতি আমের চাষ হয়েছে ৯৪৮ হেক্টর জমিতে। এ ছাড়া বারোমাসি জাতের মধ্যে কাটিমন চাষ হয়েছে ১১০ হেক্টর ও বারি আম-১১ চাষ হয়েছে ৫৫ হেক্টর জমিতে।

আমচাষিদের সঙ্গে কথা বলে আরও জানা যায়, বর্তমানে জেলায় পাওয়া যাচ্ছে নাবি জাতের বারি আম-৪। বাজারে প্রতি মণ বারি আম-৪ বিক্রি হচ্ছে সাড়ে ৫ হাজার থেকে ৬ হাজার টাকা পর্যন্ত। জেলার খুচরা বাজারে বর্তমানে প্রতি কেজি বারি আম-৪ বিক্রি হচ্ছে ১৫০ থেকে ১৭০ টাকায়। বারি আম-৪ মধ্য আগস্ট পর্যন্ত বাজারে পাওয়া যাবে। আগস্টের প্রথম সপ্তাহ থেকে বাজারে পাওয়া যাবে নাবি জাতের আরেক আম আশ্বিনা। এরপরে বাজারে আসবে নাবি জাতের বারি আম-১২ বা গৌড়মতি।

সাপাহার উপজেলার ফুটকইল এলাকায় ৯০ বিঘার একটি আমবাগান রয়েছে সাখাওয়াত হোসেনের। এ বাগানে নাবি জাতের বারি আম-৪-এর ১ হাজার ৩০০টি ও ১ হাজার ৭০০টি গৌড়মতি জাতের আমের গাছ রয়েছে। এবারই প্রথম বারি আম-৪ ও গৌড়মতি আম ধরেছে তাঁর বাগানে।

সাখাওয়াত হোসেন বলেন, সাপাহার ও পত্নীতলা উপজেলায় প্রায় ৪০০ বিঘা জমিতে তাঁর ৯টি বাগান রয়েছে। এসব বাগানের প্রায় ৮০ শতাংশ গাছই আম্রপালি। এবার প্রতি মণ আম্রপালি ২ হাজার ২০০ থেকে ৩ হাজার ২০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি করেছেন। বর্তমানে প্রতি মণ বারি আম-৪ বিক্রি করছেন ৫ হাজার ৫০০ থেকে ৬ হাজার টাকায়। আম্রপালির চেয়ে বারি আম-৪ চাষে দ্বিগুণ লাভ। গৌড়মতি আরও দেরিতে বাজারে আসবে।

সাপাহারের গোডাউন পাড়া এলাকার আমচাষি সোহেল রানাও চাষ করেছেন নাবি জাতের বারি আম-৪, গৌড়মতি ও আশ্বিনা আম। তিনি বলেন, ভরা মৌসুমে প্রতি কেজি আম্রপালি বিক্রি হয়েছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজিতে। অথচ মৌসুমের শেষে নাবি জাতের বারি আম-৪ বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা কেজিতে। তাঁর বাগান দেখে অনেকেই বারি আম-৪ ও গৌড়মতির চারা ও কলম কিনছেন।

জেলার কৃষি অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত উপপরিচালক এ কে এম মঞ্জুরে মাওলা বলেন, বারি আম-৪ ও বারি আম-১২ (গৌড়মতি) উন্নত জাতের হাইব্রিড আম। এ দুটি জাতই নওগাঁয় ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন