যেসব ইটভাটাকে জরিমানা করা হয়েছে সেগুলো হলো ন্যাশনাল ব্রিকস, মায়ের দোয়া ব্রিকস ও সামছুদ্দিন অ্যান্ড রুবিলা ব্রিকস। ভাটাগুলোর প্রত্যেক মালিককে দুই লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন সিরাজদিখান উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাসনিম আক্তার। তিনি জানান, অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মুন্সিগঞ্জ পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. নূর কুতুবে আলম সিদ্দিক।

তবে সিরাজদিখান ইটভাটা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মান্নান ইটভাটায় অভিযান চালানোর কারণে দুঃখ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, দুই দিন আগে ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের তাণ্ডবে অনেক ইটভাটার ২৫ লক্ষাধিক কাঁচা ইট নষ্ট হয়েছে। এতে মালিকপক্ষের প্রায় ২০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। এখন আবার ভ্রাম্যমাণ আদালতকে জরিমানা দিতে হয়েছে।