ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী আরও বলেন, নিহত সেলিম টেকনাফের নয়াপাড়া আশ্রয়শিবিরে ডাকাত চাকমাইয়া গ্রুপের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। তিনি টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং উনছিপ্রাং তোতারদিয়া সীমান্তে গত রাতে সন্ত্রাসী নবী হোসেন গ্রুপ ও মুন্না গ্রুপের মধ্যে  গোলাগুলির সময় গুলিবিদ্ধ হন। মুন্না গ্রুপের হয়ে চাকমাইয়া গ্রুপের সদস্যরাও ওই গোলাগুলিতে অংশ নেয়। গুলিবিদ্ধ সেলিমকে তিনজন অজ্ঞাত ব্যক্তি কুতুপালং এমএসএফ হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যান। তাঁর শরীরের তিনটি গুলির চিহ্ন দেখা গেছে।

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল হালিম বলেন, কী ঘটনায় সেলিমের মৃত্যু হয়েছে, সেটি তিনি জানেন না। তবে সেলিম নয়াপাড়া রোহিঙ্গা আশ্রয়শিবিরে আই ব্লকের বাসিন্দা বলে তিনি নিশ্চিত করেছেন।