প্রত্যক্ষদর্শী, এলাকাবাসী ও টিসিবির সুবিধাভোগীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আজ সকালে চাদশী ইউনিয়নে টিসিবির পণ্য বিতরণ করতে মোল্লাবাড়ি বাসস্ট্যান্ড এলাকায় যান ডিলারের প্রতিনিধি রতন হোসেন। তিনি তালিকাভুক্ত সুবিধাভোগীদের মধ্যে পণ্য বিতরণ শুরু করেন। এ সময় আগে পণ্য নেওয়া নিয়ে নজরুল ও মেহেদীর দুই সমর্থক কথা–কাটাকাটি ও হাতাহাতিতে জড়ান। খবর পেয়ে নজরুল ও মেহেদী ঘটনাস্থলে আসেন। তখন ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল তাঁর সমর্থককে মারধরের বিষয়ে ইউপি সদস্য মেহেদীর কাছে জানতে চান। এ নিয়ে নজরুল ও মেহেদী বাগ্‌বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে তাঁরা একে অন্যের ওপর হামলা করেন।

ইউপি সদস্য মেহেদী হাসান বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান নজরল প্রভাব খাঁটিয়ে তালিকাবহির্ভূত তাঁর সমর্থকদের মধ্যে টিসিবির পণ্য বিতরণ শুরু করেন। তিনি এর প্রতিবাদ করলে ইউপি চেয়ারম্যান তাঁকে থাপ্পড় দেন বলে তিনি দাবি করেন। পরে তিনিও চেয়ারম্যানকে মারধর ও কিল–ঘুষি মেরে মাটিতে ফেলে দেন।

মেহেদী হাসান অভিযোগ করে বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর তিনি অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন। বিষয়টি স্থানীয় সংসদ সদস্যকে জানানোর কারণে তিনি (নজরুল) তাঁর ওপর খেপে আছেন। এ জন্য ইউপি চেয়ারম্যান তাঁর ওপর হামলা করেন।

অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ অস্বীকার করে ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম বলেন, ইউপি সদস্য মেহেদী জোর করে আগে টিসিবির মালামাল নেওয়ার চেষ্টা করেন। তাঁর (নজরুল) সমর্থকেরা প্রতিবাদ করলে তিনি হামলা করে দুই সমর্থককে মারধর করেন এবং ৪০ কেজি চিনি, ৪০ কেজি ডাল ও ৫৬ কেজি তেল লুট করে নিয়ে যান। কিল–ঘুষির বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে তিনি বলেন, মারধর নয়, মেহেদী দুর্ব্যবহার করেছেন।

গৌরনদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আফজাল হোসেন বলেন, টিসিবির পণ্য বিতরণে সমস্যার কথা শুনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও পুলিশের সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ ঘটনায় কেউ কোনো লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ইউএনও বিপিন চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, টিসিবির পণ্য বিতরণ নিয়ে চাদশী ইউপির চেয়ারম্যান ও সদস্যের মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনার কথা শুনে তিনি ঘটনাস্থলে যান। পরে টিসিবির পণ্য বিতরণ কার্যক্রম স্বাভাবিক করা হয়। তবে ওই ঘটনায় কেউ এখনো লিখিত অভিযোগ করেনি বলে তিনি জানান।