নূরজাহানের মা পরশ বেগম বলেন, আজ সকালে তিনি প্রতিদিনের মতো চুলায় রান্না করছিলেন। এ সময় তাঁর মেয়ে নূরজাহান ঘরে ছিল। হঠাৎ করে নূরজাহান দৌড়ে তাঁর কাছে চলে আসে। অসাবধানতাবশত এ সময় নূরজাহান চুলার ওপরে থাকা কাড়াইয়ের গরম ডালে পড়ে যায়।

পরে পরিবারের লোকজন নূরজাহানকে দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। এ সময় সেখানকার চিকিৎসকেরা তাঁকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকায় নেওয়ার পরামর্শ দেন।

নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক মোস্তাফা কায়সার বলেন, শিশুটির শরীরের ৩০ ভাগ পুড়ে গেছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন