পুলিশ জানায়, গতকাল গাজীপুর থেকে পাঁচ যাত্রী নিয়ে অটোরিকশাটি শিবপুরে ইটাখোলার দিকে যাচ্ছিল। এদিকে চরসিন্দুর থেকে একটি কাভার্ড ভ্যান গাজীপুরের দিকে যাচ্ছিল। সন্ধ্যার দিকে সুলতানপুর এলাকায় পৌঁছালে অটোরিকশা ও কাভার্ড ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে অটোরিকশাটি দুমড়েমুচড়ে গেলে চালকসহ পাঁচজন গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধার করে স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠান। তাঁদের মধ্যে আলমগীর হোসেনকে ১০০ শয্যাবিশিষ্ট নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নেওয়ার পথেই তাঁর মৃত্যু হয়। অন্যদিকে রাত নয়টার দিকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইলিয়াছ মিয়ার মৃত্যু হয়।

পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইলিয়াছ বলেন, এ দুর্ঘটনায় দুজনের মৃত্যু হয়েছে। দুর্ঘটনার পর কাভার্ড ভ্যানের চালক পালিয়ে গেলেও দুর্ঘটনাকবলিত কাভার্ড ভ্যান ও অটোরিকশা জব্দ করা হয়েছে। নিহত ব্যক্তিদের পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।