২৭ জুলাই ওই ইউপিতে ভোট গ্রহণের কথা ছিল। তবে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে তদন্ত প্রতিবেদন না পাওয়ায় এবং ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট নিয়ে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীর সমর্থকের বিতর্কিত মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে ওই ইউপিতে ভোট স্থগিত করে গতকাল সোমবার প্রজ্ঞাপন জারি করেছে নির্বাচন কমিশন।

সাইফুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, মো. রাহাত আকন (২৫), মো. বশির (২৫) ও আনোয়ারের (৩২) নেতৃত্বে ২৫ থেকে ৩০ জনের একটি দল তাঁর ওপর হামলা চালায়। হামলাকারীরা কিল–ঘুষি মেরে তাঁকে এলাকা ছাড়ার হুমকি দেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্যানেল চেয়ারম্যান রুবেল তালুকদার চিকিৎসার জন্য ঢাকায় ছিলেন। আজ সকালে তিনি বাড়িতে ফেরেন। এ খবর পেয়ে সাইফুল তাঁর পাঁচ-ছয়জন কর্মীকে নিয়ে রুবেল তালুকদারকে দেখতে যান। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রুবেল তালুকদারের বাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে হামলাকারীরা পালিয়ে যান।

রুবেল তালুকদার বলেন, ‘আমার বাড়িতে ঢুকে হামলা চালানোর ঘটনা দেখে হতভম্ব হয়ে যাই। নিরুপায় হয়ে পুলিশকে খবর দিই।’

স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সাইফুল ইসলামের ওপর হামলা অভিযোগের বিষয়ে জানার জন্য রাহাত, বশির ও আনোয়ারের মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাঁদের ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আল মামুন বলেন, হামলার খবর পেয়ে তৎক্ষণাৎ ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন