বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সাংবাদিক রঘুনাথ খাঁ গত সোমবার সকাল ছয়টার দিকে বাড়ি থেকে সংবাদ সংগ্রহের জন্য বের হন। বেলা সোয়া ১১টার দিকে সাতক্ষীরা শহরের সুলতানপুর বড় বাজারের তিন রাস্তার মোড় এলাকায় দুজন লোক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য পরিচয় দিয়ে তাঁকে মোটরসাইকেল থেকে নামতে বলেন। এরপর তাঁকে অন্য একটি মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে যান। স্থানীয় লোকজন থানায় যোগাযোগ করলে পুলিশ কিছু জানে না বলে জানানো হয়। তবে তুলে নেওয়ার সাত ঘণ্টা পর সোমবার রাতে বিস্ফোরক দ্রব্য রাখা ও চাঁদাবাজির অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে দুটি মামলা করে সেগুলোতে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

বিবৃতিতে আর্টিকেল নাইনটিনের দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক ফারুখ ফয়সল বলেন, সম্প্রতি বাংলাদেশে সাংবাদিকের ওপর হামলা ও মামলার ঘটনা উদ্বেগজনক হারে বেড়ে চলেছে। বিশেষ করে পুলিশের কর্তৃত্বপরায়ণ প্রবণতা, বেআইনি আটক, বলপ্রয়োগ, মামলা, হুমকি, হয়রানি করার ঘটনা বেড়েই চলেছে। স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিতে সাংবাদিকদের ভূমিকা অনস্বীকার্য। সাদাপোশাকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে সাংবাদিক রঘুনাথ খাঁকে তুলে নেওয়ার ঘটনা সাংবাদিক ও সংবাদমাধ্যমের কণ্ঠ রোধ করার একটি অপচেষ্টা।