এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। পুরস্কার প্রসঙ্গে পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেন, বর্তমান সরকার বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে বিভিন্নভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় ইমার্জিং ডেস্টিনেশন অ্যাওয়ার্ড একটি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি। বাংলাদেশের আতিথেয়তা খাতে বিশ্বমানের সেবা নিশ্চিত করতে বিহার নেতৃত্ব ও কার্যক্রম প্রশংসনীয়। 

সম্প্রতি মালদ্বীপে জাকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানে সাউথ এশিয়ান ট্র্যাভেল অ্যাওয়ার্ডসের ষষ্ঠ সংস্করণ শেষ হয়। সার্ক অঞ্চলের মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা, ভারত, নেপাল, ভুটান ও বাংলাদেশ এতে অংশগ্রহণ করে। অনুষ্ঠানে মালদ্বীপের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফয়সাল নাসিম প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া দেশটির পর্যটনমন্ত্রী আবদুল্লাহ মৌসুম ও অন্যান্য সরকারি কর্মকর্তাসহ দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর হাইকমিশনারেরা অনুষ্ঠানে অংশ নেন। 

বিহা সভাপতি এইচ এম হাকিম আলীর সভাপতিত্বে সম্মেলনে ইউনিক হোটেল এন্ড রিসোর্ট লিমিটেডের (ওয়েস্টিন ঢাকা ও শেরাটন ঢাকা) ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. নূর আলী, লেকশোর হোটেলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তারেক শামস, গোল্ডেন টিউলিপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খালেদ উর রহমান, ইউনিক হোটেল এন্ড রিসোর্ট লিমিটেডের সিইও (ওয়েস্টিন ঢাকা ও শেরাটন ঢাকা) সাখাওয়াত হোসেন, হোটেল দি কক্সটুডের পরিচালক মহিউদ্দিন খোকন,  সোনারগাঁও হোটেলের ফিন্যান্স ডিরেক্টর আসিফ আহমেদ, সেনা হোটেলস ডেভেলপমেন্ট লিমিটেডের (রেডিসন ব্লু ঢাকা ও চট্টগ্রাম) কোম্পানি সেক্রেটারি আবু হানিফ বারী, লা মেরিডিয়ান হোটেলের পরিচালক এ কে এম বদরুল আলম, গ্র্যান্ড প্যালেস হোটেল এন্ড রিসোর্টের পরিচালক শামসুল আলম পান্থসহ অন্যান্য তারকা হোটেল মালিকেরা উপস্থিত ছিলেন।