চারটি ক্যাটাগরিতে ‘এসিটি অস্ট্রেলিয়ান অব দ্য ইয়ার’ পুরস্কার দেওয়া হয়। এগুলো হলো এসিটি অস্ট্রেলিয়ান অব দ্য ইয়ার; এসিটি সিনিয়র অস্ট্রেলিয়ান অব দ্য ইয়ার; এসিটি ইয়াং অস্ট্রেলিয়ান অব দ্য ইয়ার এবং এসিটি লোকাল হিরো। এই চার ক্যাটাগরিতে ১৬ জন মনোনয়ন পেয়েছেন।

শামারুহ মির্জা অস্ট্রেলিয়ায় চিকিৎসাবিজ্ঞানী এবং সি তারা’স স্টোরির সহপ্রতিষ্ঠাতা। ২০১৭ সালে সি তারা’স স্টোরি নামে এই অলাভজনক দাতব্য সংস্থাটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। বাংলাদেশের দুই নারী বীর প্রতীক ক্যাপ্টেন ডাক্তার সিতারা বেগম ও তারামন বিবির নাম থেকে সংস্থাটির নামকরণ করা হয়।

শামারুহ তাঁর এই সংস্থার মাধ্যমে লাঞ্ছিত ও নির্যাতিত নারীদের সহায়তা ও নারীর ক্ষমতায়নে কাজ করেন। শামারুহ মির্জা বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের মেয়ে।

এসিটি পুরস্কারপ্রাপ্ত এ চারজন ২০২৩ অস্ট্রেলিয়ান অব দ্য ইয়ার অ্যাওয়ার্ডের জন্য ক্যানবেরাকে প্রতিনিধিত্ব করবেন। পুরস্কারটি আগামী ২৫ জানুয়ারি ঘোষণা করা হবে।