উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডের (৪০ নম্বর) জন্মনিবন্ধন সহকারী বিপ্লব কুমার দেব প্রথম আলোকে বলেন, সকাল ১০টা থেকে স্বাভাবিকভাবেই কাজ চলছিল। দুপুরে কাজ করতে গিয়ে দেখেন তাদের আইডি থেকে অস্বাভাবিক রকমের জন্মনিবন্ধন সনদ ইস্যু করা হয়েছে। এ সময় সার্ভারে অপরিশোধিত অর্থের পরিমাণও বেশি দেখানো হচ্ছিল । কারণ তাঁরা ওই পরিমাণ টাকার কাজও করেননি। বিষয়টি অস্বাভাবিক মনে হলে দ্রুত পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করা হয়। বেলা পৌঁনে একটার মধ্যে আইডি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।

বিপ্লব কুমার দেব আরও বলেন, হ্যাকারদের নিয়ন্ত্রণে থাকা থাকা সময়ে ৮৪টি জন্মনিবন্ধন সনদ ইস্যু করা হয় বলে। আইডি হ্যাক হওয়ার বিষয়টি প্রথমে ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুল বারেককে এবং পরে সিটি করপোরেশনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়।

ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুল বারেক অসুস্থ থাকায় এ বিষয়ে তাঁর মন্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে তাঁর ব্যক্তিগত সহকারী মো. সাইফুদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, এ ঘটনায় পতেঙ্গা থানায় জিডি করেছেন তারা। বিষয়টি কাউন্টার টেররিজমকেও অবহিত করা হয়েছে। আর যে ৮৪টি জন্মনিবন্ধন সনদ ইস্যু করা হয়েছে তা বাতিলের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করা হবে।

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে অফিস খোলা রাখার বিষয়ে আবদুল বারেক বলেন, মানুষের কষ্ট লাঘব করার জন্য সাপ্তাহিক ছুটির দিন শনিবারেও কার্যালয় খোলা রাখা হয়।

জানতে চাইলে সিটি করপোরেশনের মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম প্রথম আলোকে বলেন, উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডের জন্মনিবন্ধন আইডি হ্যাক হওয়ার বিষয়টি তাঁরা জেনেছেন। এই বিষয়ে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এছাড়া জন্মনিবন্ধন সনদগুলো বাতিল করার জন্য রেজিস্ট্রার জেনারেলকে চিঠি দেওয়া হবে।