সম্মেলনে হিন্দু পরিষদের মুখপাত্র সুমন কুমার রায় বলেন, ‘সরকারকে বলতে চাই, আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে সংখ্যালঘুদের দেওয়া প্রতিশ্রুতির যদি বাস্তবায়ন না হয়, সংখ্যালঘু সম্প্রদায় জানে, কীভাবে দাবি বাস্তবায়ন করতে হয়। সংখ্যালঘু সম্প্রদায় আজকে সজাগ। তাদের মুলা ঝুলিয়ে শুধু ভোট ব্যাংক হিসেবে ব্যবহার করা যাবে না। সম্মেলনের মাধ্যমে আমরা বলতে চাই, সংখ্যালঘু সম্প্রদায় আর কোনো রাজনৈতিক দলের বলির পাঠা হিসেবে, ভোট ব্যাংক হিসেবে ব্যবহৃত হবে না।’
সুমন কুমার রায় আরও বলেন, সংখ্যালঘু সম্প্রদায় সব রকম বৈষম্যরোধে এবং রাজনৈতিক ও সামাজিক অধিকার আদায়ে ভবিষ্যতে শুধু ঘরোয়া নয়, রাজপথেও ঐক্যবদ্ধভাবে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত রাজপথে থাকবে তারা।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা ইসকনের (ফুড ফর লাইফ) পরিচালক  রূপানুগ গৌর দাস ব্রহ্মচারী বলেন, আমরা কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে সময় কাটাচ্ছি। ১৯৪৮ সালের পর থেকে হিন্দু সম্প্রদায়কে উৎপাটনের জন্য যে চক্রান্ত চলছে, তা আজও বন্ধ হয়নি। নীরবে আমাদের শ্বাসরুদ্ধ করা হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন হিন্দু পরিষদ আন্তর্জাতিক কমিটির (আমেরিকা) সভাপতি সত্যব্রত কর। সকালে মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্বালন ও নামসংকীর্তনের মাধ্যমে এই সম্মেলনের উদ্বোধন করা হয়।