আজ দুদকের সচিব মাহবুব হোসেন জানান, সেলিম খানের বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হওয়ায় কমিশনের অনুমোদনক্রমে তাঁর বরাবর সম্পদ বিবরণী দাখিলের নোটিশ জারি করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে তিনি সম্পদ বিবরণী দাখিল করেন।

দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণী যাচাই শেষে সম্পদ বিবরণীতে ৬৬ লাখ ৯৯ হাজার ৪৭৭ টাকা মূল্যের স্থাবর সম্পদের তথ্য গোপন এবং অবৈধ উপায়ে মোট ৩৪ কোটি ৫৩ লাখ ৮১ হাজার ১১৯ টাকা মূল্যের জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও ভোগদখলের প্রমাণ মেলে। এ জন্য দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪–এর ২৬ (২) ও ২৭ (১) ধারায় কমিশন একটি মামলা করার অনুমতি দেয়।

এর আগে গত এপ্রিলে সেলিম খানের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন আদালত। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ ও মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এ আদেশ দেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন