এর আগে আজ দুপুরে সকালে পৃথক আরেক প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়, আইজিপি বেনজীর আহমেদ ৩০ সেপ্টেম্বরে অবসরে যাচ্ছেন। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ৩০ সেপ্টেম্বর বেনজীর আহমেদের বয়স ৫৯ বছর পূর্ণ হওয়ায় সরকারি চাকরি আইন, ২০১৮ অনুযায়ী চাকরি থেকে অবসর দেওয়া হলো। এ অবস্থায় আগামী ১ অক্টোবর থেকে আগামী বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অবসরোত্তর ছুটিতে থাকবেন (মূলত অবসর)।

বর্তমান আইজিপি বেনজীর আহমেদের চাকরির মেয়াদ ৩০ সেপ্টেম্বর শেষ হওয়ায় চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন আইজিপির দায়িত্ব নেবেন। তিনি র‌্যাবের ডিজি পদে যোগদানের আগে সিআইডির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বিসিএস অষ্টম ব্যাচের এই কর্মকর্তা আগামী ১১ জানুয়ারি অবসরে যাওয়ার কথা।

আগামী নির্বাচন সামনে রেখে পুলিশপ্রধান পদে বেনজীর আহমেদের চাকরির মেয়াদ চুক্তিতে বাড়ানো হবে কি না, তা নিয়ে কয়েক মাস ধরে পুলিশের ভেতরে-বাইরে আলোচনা চলছিল। এ প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি আলোচনায় আসে।

২০২০ সালের এপ্রিল মাসে আইজিপি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছিলেন বেনজীর আহমেদ। তবে দায়িত্ব নেন ওই বছরের মে মাসে। র‍্যাবের সাবেক মহাপরিচালক হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞায় পড়েছিলেন বেনজীর আহমেদ।

গত বছরের ১০ ডিসেম্বর যুক্তরাষ্ট্র গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) এবং বাহিনীর সাবেক ও বর্তমান সাতজন কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়। র‌্যাবের সাবেক ডিজি হিসেবে বেনজীর আহমেদও নিষেধাজ্ঞার মধ্যে পড়েন। আবার র‌্যাবের বর্তমান ডিজি হিসেবে চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুনের ওপরও একই নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

তবে নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই সম্প্রতি জাতিসংঘে পুলিশপ্রধানদের সম্মেলনে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্রে যান আইজিপি বেনজীর আহমেদ। নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সদর দপ্তরে ৩১ আগস্ট থেকে ১ সেপ্টেম্বর ওই সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের নেতৃত্বে আইজিপি বেনজীর আহমেদসহ ছয় সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল অংশ নেয়।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন