ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের দেওয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বার্ষিক গবেষণা কার্যক্রমের স্বীকৃতি এবং নতুন গবেষণা দল তৈরি ও সহযোগিতার ক্ষেত্রে প্রভাবকের কাজ করেছে এই আয়োজন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলম। এ ছাড়া ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ভিনসেন্ট চ্যাং এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট (রিসার্চ) চারালবস ডৌমানিডিস উপস্থিত ছিলেন।

সূচনা বক্তব্যে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে রিসার্চ ডে–২০২২ নিয়ে সংক্ষিপ্ত ধারণা দেন চারালবস ডৌমানিডিস। একই সঙ্গে তিনি ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় গৃহীত গুরুত্বপূর্ণ গবেষণা উদ্যোগসমূহ সম্পর্কেও আলোচনা করেন।

উপাচার্য ভিনসেন্ট চ্যাং বলেন, ‘গবেষণা বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষার পরবর্তী অগ্রদূত। বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল কাজ হলো নতুন জ্ঞান সৃষ্টি করা এবং এর জন্য গবেষণা অত্যাবশ্যকীয়। বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল অর্থনীতির দেশের জন্য গবেষণার ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’

তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলম বলেন, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য যেন বাংলাদেশ সরকারের ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ রূপকল্পের এক প্রতিচ্ছবি।

জিয়াউল আলম বলেন, রিসার্চ ডে–২০২২ বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষার জন্য একটি অনুকরণীয় এবং সময়োচিত উদ্যোগ। ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছ থেকে আমরা তথ্য এবং যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক আরও গবেষণা প্রত্যাশা করি।

অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ‘রিসার্চ এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করা হয়।