জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজের সই করা গত ২৬ জানুয়ারির অফিস আদেশে বলা হয়, বহিষ্কারাদেশ চলাকালে ওই দুই ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস-পরীক্ষাসহ কোনো ধরনের কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে পারবেন না। এ সিদ্ধান্তের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে তাঁরা রিট করেন। এর প্রাথমিক শুনানি নিয়ে গত ২০ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট রুল দেন। সেই সঙ্গে তাঁদের নিয়মিত পড়ালেখা চালিয়ে নেওয়ার ও পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে তাঁদের ফলাফল প্রকাশ না করার নির্দেশ দেন উচ্চ আদালত।

রুলের ওপর শুনানি শেষে আজ রায় দেওয়া হয়। আদালতে রিট আবেদনকারীদের পক্ষে আইনজীবী মাহবুব উদ্দিন খোকন, সাকিব মাহবুব ও এস এম আরিফুল ইসলাম শুনানিতে ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী নাহিদ মাহতাব।

আইনজীবী মাহবুব উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, কারণ দর্শানো ছাড়া দুই শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা অবৈধ ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। এখন তাঁদের পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণায় কোনো বাধা নেই।

আইনজীবী নাহিদ মাহতাব প্রথম আলোকে বলেন, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে কি না, সে বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নেবে।