মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট চট্টগ্রামের উপপরিদর্শক স্বপন কুমার সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করে প্রথম আলোকে বলেন, আশরাফুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পতেঙ্গা থানার মামলায় চার দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়।

গত বৃহস্পতিবার রাতে যশোরের শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়া এলাকার নিজ বাড়ি থেকে আশরাফুলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে তিনি পুলিশকে বলেন, তাঁর কাছে জন্মনিবন্ধনের সরকারি সার্ভারের পাসওয়ার্ড আছে। নিজের দোকানে বসেই সারা দেশের যেকোনো ঠিকানায় অনলাইনে জন্মনিবন্ধনের তথ্য সংযুক্ত (এন্ট্রি) ও সংশোধন করতে পারেন। একটি জন্মনিবন্ধনের জন্য নেন এক থেকে দেড় হাজার টাকা। পাসওয়ার্ড দেওয়া জন্ম ও মৃত্যুনিবন্ধন বিভাগের সাবেক প্রোগ্রামার খালিদকে দিতেন ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, কুমিল্লা, রাজশাহী, যশোরের বিভিন্ন এলাকার দালালের মাধ্যমে কাজ নিতেন আশরাফুল।

চট্টগ্রাম নগরে জালিয়াতির মাধ্যমে ১৮টি জন্মসনদ (১২টি রোহিঙ্গা) নেওয়ার ঘটনায় গত বছরের জুনে করা তিনটি মামলার তদন্ত করতে গিয়ে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট আশরাফুলের খোঁজ পায়।