আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মীরজাদী সেব্রিনা ভালো আছেন। তাঁর জ্বর নেই। চিকিৎসকেরা তাঁকে মাস্ক না পরেই থাকতে বলেছেন। তিনি টেলিভিশন দেখছেন।

আগস্ট মাসের শুরুতে গুরুতর অসুস্থ হলে মীরজাদী সেব্রিনাকে রাজধানীর একটি বড় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয়। সেখানে সিঙ্গাপুর ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি হাসপাতালে তাঁকে ভর্তি করা হয়। ওই হাসপাতালে পাঁচবার নেক্রোসেক্টমি করা হয়েছিল। তাঁকে দীর্ঘদিন ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছিল।

জনস্বাস্থ্যের বিষয়গুলো সহজবোধ্য ও স্পষ্ট করে ব্যাখ্যা করার ক্ষেত্রে মীরজাদী সেব্রিনার সুনাম আছে। মহামারির শুরু দিকে তিনি ছিলেন রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক। তিনি সেই সময় প্রতিদিন ঠিক দুপুর ১২টায় মহামারির সর্বশেষ পরিস্থিতি ও করণীয় বিষয়ে জানাতে গণমাধ্যমের সামনে হাজির হতেন। নির্দিষ্ট সময়ে উপস্থিতি ও স্পষ্ট বক্তব্যের কারণে মীরজাদী সেব্রিনা জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন।