সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বৈঠকে বাংলাদেশ গ্যাস ফিল্ডস কোম্পানি লিমিটেডের (বিজিএফসিএল) ২০২০-২১ অর্থবছরের আয়-ব্যয়ের হিসাব তুলে ধরা হয়। রাষ্ট্রায়ত্ত এ কোম্পানি ২০২০-২১ অর্থবছরে ২ লাখ ৩৬ হাজার ১৩২ দশমিক ৯৫০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস বিক্রি করে ৮৯১ কোটি ৯৬ লাখ টাকা আয় করেছে। একই সময়ে ১৫ লাখ ৩১ হাজার ৪৪৩ লিটার পেট্রল, ৪৮ লাখ ৯৮ হাজার ১৭৯ লিটার ডিজেল, ৯ লাখ ৪৫ হাজার লিটার লাইট কনডেনসেট ও ২ কোটি ৯ লাখ ৬১ হাজার হেভি কনডেনসেট বিক্রি করে ১২৭ কোটি ৮৯ লাখ টাকা এবং কনডেনসেট হ্যান্ডলিং বাবদ ২ কোটি ৪২ লাখ টাকা আয় করে। এ ছাড়া আমানতের ওপর সুদসহ আয় হয় ১০৩ কোটি ৩৩ লাখ টাকা।

২০২০-২১ অর্থবছরে এই কোম্পানির রাজস্ব আয় দাঁড়ায় ১ হাজার ১২৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা। ভ্যাটসহ ব্যয় হয় ৯৫১ কোটি ৫৮ লাখ টাকা। করপূর্ব নিট লাভ ১৭৪ কোটি টাকা। ওই অর্থবছরে কোম্পানি ভ্যাট বাবদ ৪৫৪ কোটি ৮০ লাখ, লভ্যাংশ ৪৮ কোটি ৯৪ লাখ, আয়কর ৫৪ কোটি ৯৭ লাখ ও ডিএসএল বাবদ ২৯৯ কোটি টাকাসহ মোট ৮৫৭ কোটি ৭১ লাখ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিয়েছে।

ওয়াসিকা আয়শা খান প্রথম আলোকে বলেন, গ্যাস ফিল্ড কোম্পানির আয়-ব্যয় নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। তারা এখনো লাভে আছে, তবে আয় কমেছে। এ ছাড়া কমিটি গ্যাস উত্তোলনে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বাপেক্স) সক্ষমতা বাড়ানো, গ্যাসের সিস্টেম লস কমানো, তেল–গ্যাস অনুসন্ধানে উৎপাদন বণ্টন চুক্তি (পিএসসি) পর্যালোচনা করে যুগোপযোগী করার পরামর্শ দিয়েছে।

ওয়াসিকা আয়শা খানের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য মো. আবু জাহির, মো. নূরুল ইসলাম তালুকদার, মো. আছলাম হোসেন, খালেদা খানম ও নার্গিস রহমান অংশ নেন।