উভয় পক্ষের শুনানি শেষে ২২ মে মামলাটি রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ রাখেন ট্রাইব্যুনাল। গতকাল বুধবার ট্রাইব্যুনাল রায়ের জন্য আজকের দিন ধার্য করেন। সে অনুযায়ী আজ রায় হলো।

মৃত্যুদণ্ড পাওয়া ছয়জন হলেন আমজাদ হোসেন হাওলাদার, সহর আলী সরদার, আতিয়ার রহমান, মোতাছিম বিল্লাহ, কামাল উদ্দিন গোলদার ও মো. নজরুল ইসলাম।

ছয়জনের মধ্যে নজরুল ইসলাম পলাতক, বাকি পাঁচজন কারাগারে।

রায় উপলক্ষে আজ কারাগারে থাকা পাঁচ আসামিকে ট্রাইব্যুনালে আনা হয়। রায়ের পর তাঁদের কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন প্রসিকিউটর মো. মোখলেসুর রহমান বাদল ও সাবিনা ইয়াসমিন খান।

কারাগারে থাকা পাঁচ আসামির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী আবদুস সাত্তার পালোয়ান। পলাতক আসামির পক্ষে ছিলেন রাষ্ট্রনিযুক্ত আইনজীবী গাজী এম এইচ তামিম।

রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন রাষ্ট্রপক্ষের প্রসিকিউটর সাবিনা ইয়াসমিন খান। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, আসামিদের বিরুদ্ধে আনা আটক, নির্যাতন, অপহরণ, লুণ্ঠন, অগ্নিসংযোগ ও হত্যার চারটি অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। ট্রাইব্যুনাল ছয় আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন।

পাঁচ আসামির আইনজীবী আবদুস সাত্তার পালোয়ান সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা রায়ে ন্যায়বিচার পাইনি। আসামিদের সঙ্গে পরামর্শ করে এই রায়ের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ আদালতে আপিল করব। আশা করছি, আপিলে আসামিরা খালাস পাবেন।’

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন